মূল Beauty Trends (বিউটি টিপস) গোঁফ-দাড়ি বাড়তেই চাইছে না? ঘরোয়া টোটকায় সমাধান আছে

গোঁফ-দাড়ি বাড়তেই চাইছে না? ঘরোয়া টোটকায় সমাধান আছে

গোঁফ-দাড়ি বাড়তেই চাইছে না? ঘরোয়া টোটকায় সমাধান আছে

অনেক পুরুষই দাড়ি-গোঁফ রাখতে পছন্দ করেন। নিজেদেরকে তাঁরা দাড়ি-গোঁফেই দেখতে পছন্দ করেন। এবং একই সঙ্গে ছোট বয়স থেকে অনেক পুরুষেরই স্বপ্ন থাকে, বড় হয়ে তারা ওই ধরনের চেহারাই বানাবে। কিন্তু অনেকের ক্ষেত্রেই দেখা যায়, বয়স বেড়ে গেলেও, বয়সের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে দাড়ি-গোঁফ বাড়ে না।

এতে স্বপ্নপূরণে অন্তরায় হয়ে দাঁড়ায়। শুধু তাই নয়, অনেকের দাড়ি-গোঁফ ততটা ঘণও নয়। তাই চাইলেই তাঁরা তা নিয়ে যে কোনও স্টাইল করতে পারেন না। কিন্তু এর সমাধান যে ঘণঘণ দাড়ি কামানো নয়, তা-ও বলছেন বিশেষজ্ঞরা। এর থেকে মুক্তি পাওয়ার সহজ সমাধান রয়েছে। কসমেটিক সলিউশন ব্যবহার করার কিছু অসুবিধা থাকে। সেক্ষেত্রে ত্বকের সমস্যা হয় অনেকের ক্ষেত্রেই। কিন্তু এই সহজ সমাধানগুলো একেবারে ঘরোয়া।

১। নারকেল তেল

১। নারকেল তেল

ঘরোয়া দাওয়াইয়ের মধ্যে নারকেল তেল মাসাজই সবচেয়ে ভালো। শুধু নারকেল তেল দিয়েও মাসাজ করা যেতে পারে। তার চেয়েও ভালো হয়, যদি ১০ ভাগ নারকেল তেলের সঙ্গে এক ভাগ রোজমেরি তেল মিশিয়ে মাসাজ করা যায়। ১৫ মিনিট রেখে ঠান্ডা জলে মুখ পরিষ্কার করে নিন।

২। আমলকি তেল

২। আমলকি তেল

আমলকি তেল যে দাড়ি বা গোঁফ গজানোর অব্যর্থ দাওয়াই তা জানেন কি? আমলকি থেকে নির্গত তেল দিয়ে গাল মাসাজ করুন। আরও ভালো হয় যদি এর সঙ্গে কিছুটা পরিমাণ সর্ষে গাছের পাতা মিশিয়ে নিতে পারেন। সর্ষে পাতার সঙ্গে আমলকি তেল মিশিয়ে গালে লাগান। ২০ মিনিট পরে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে তিন দিন এই প্রক্রিয়া চালান।

৩। মাসাজ করুন

৩। মাসাজ করুন

দাড়ি বা গোঁফ গজানোর জন্য মুখের ত্বকের নীচে রক্ত চলাচল ভালো হওয়া দরকার। সেক্ষেত্রে যদি আপনি নিয়মিত মুখের চামড়া মাসাজ করেন, দাড়ি-গোঁফের বৃদ্ধি দ্রুত হবে। একই রকম ভাবে মাথার তালু, বা চুলের গোড়া মাসাজ করলে চুল ঘণ হয়। এক্ষেত্রেও একই প্রক্রিয়ার সাহায্য নিতে পারেন।

৪। লেবু আর দারুচিনি

৪। লেবু আর দারুচিনি

এক চা-চামচ দারুচিনি গুঁড়োর সঙ্গে দুই চা-চামচ লেবুর রস মিশিয়ে নিন। এটিও দাড়ি-গোঁফ গজানোর জন্য খুব কার্যকরী। ২০ মিনিট গালে রেকে দিন এই মিশ্রণ। তারপর ঠান্ডা জলে মুখ ধুয়ে নিন। সপ্তাহে এটি দু’বার করলে উপকার পাবেন।

৫। ইউক্যালিপটাস তেল

৫। ইউক্যালিপটাস তেল

ইউক্যালিপটাস তেলের অনেকগুলোর উপকারের মধ্যে এটা একটা। শুধু ইউক্যালিপটাস তেল দিয়েই সপ্তাহে দু’দিন মুখ মাসাজ করতে পারেন। আরও ভালো হয় যদি তার সঙ্গে কিছুটা অলিভ অয়েল মিশিয়ে নেন। অলিভ অয়েলে থাকা ভিটামিন-ই ত্বককে ভালো রাখে। এবং দাড়ি-গোঁফের বৃদ্ধি বাড়ায়। ২০ মিনিট রাখার পরে অবশ্যই ধুয়ে নেবেন।

৬। হালকা মেজা থাকুন

৬। হালকা মেজা থাকুন

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মানসিকভাবে ভালো থাকলে দাড়ি-গোঁফের বৃদ্ধি দ্রুত হয়। পরিসংখ্যানও তেমনই ইঙ্গিত দিচ্ছে। তাই যদি আপনি দাড়ি-গোঁফের ফ্যাশান করতে চান, তাহলে মন ভালো রাখুন। নিজেকে চাপমুক্ত রাখুন।

৭। প্রোটিন খাওয়া বাড়ান

৭। প্রোটিন খাওয়া বাড়ান

প্রোটিন খাওয়া বাড়ালেও একই উপকার হয়। বিশেষত প্রাণীজ প্রোটিন। মাছ, ডিম, মাংস যাঁরা বেশি পরিমাণে কান, তাঁদের গোঁফ-দাড়ি ঘণ

হয়। কিন্তু অতিরিক্ত প্রোটিন ডায়েট শুরু করার আগে অবশ্যই বিশেষজ্ঞ এবং চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

৮। নিয়মিত ব্যয়াম

৮। নিয়মিত ব্যয়াম

নিয়মিত একসারসাইজ করলে শরীরে রক্ত চলাচল বাড়ে। মানসিক চাপ কমে। ফলে দাড়ি-গোঁফের বৃদ্ধি ভালো হয়।

গোঁফ-দাড়ি বাড়তেই চাইছে না? ঘরোয়া টোটকায় সমাধান আছে

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here